পর্যবেক্ষণে সংবাদ প্রকাশের পরে এএসআই ক্লোজড

সোমবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৯:০৩


রইসুল ইমন, পটুয়াখালী::
পটুয়াখালীর বাউফল থানা পুলিশের সেই অলোচিত সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) সুজন দেবনাথকে আজ সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) পটুয়াখালী পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে। জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশে তাকে ক্লোজড করা হয়। এর আগে রবিবার বিকেলে এএসআইর বিরুদ্ধে দৈনিক পর্যবেক্ষণ পত্রিকার অনলাইন সংস্করণে "পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে চার যুবককে হয়রানির অভিযোগ" শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। 
পুলিশ সদস্য সুজন দেবনাথকে ক্লোজড করার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আল মামুন। 
জানা গেছে, এএসআই সুজন দেবনাথ বাউফল সদর ইউনিয়নের যৌতা ও অলিপুরা গ্রামের তরিকুল ইসলাম (১৯), আমানুল ইসলাম (১৮), মোঃ ছালাম ওরফে সালেম (২৯) ও নাঈম হাওলাদারের (২১) কাছে  ১৫ হাজার টাকা করে মোট ৬০ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করেন। টাকা দাবির কারণ হিসেবে সুজন ভুক্তভোগীদের জানান তাদের নামে থানায় মাদক মামলা আছে সেই মামলা থেকে বাচিঁয়ে দেবে এবং নিজেকে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা দাবি করেন সুজন। পরবর্তীতে থানায় খোঁজ নিয়ে জানা যায় ভুক্তভোগীদের বিরুদ্ধে কোনো ধরনের মামলা নেই। এছাড়াও মোবাইল ফোনে এই ঘুষ দাবির কথোপকথনের একটি অডিও রেকর্ড সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এ বিষয়ে রবিবার দৈনিক পর্যবেক্ষণ পত্রিকা অনলাইন সংস্করণে একটি সংবাদ প্রকাশ করে। গতকাল রবিবার "ঘটনার সত্যতা যাচাই করে এএসআই সুজন দেবনাথের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে" বলে পর্যবেক্ষণকে জানিয়েছিলেন পটুয়াখালী জেলা পুলিশ সুপার মো. সাইদুল ইসলাম। 
এছাড়াও অভিযোগ রয়েছে, পুলিশের এই এএসআই সুজন দেবনাথ কথিত সোর্সদের মাধ্যমে মাদক বিক্রি করাতেন এবং যারা মাদক ক্রয় করতেন সোর্সদের মাধ্যমে তাদের নাম ঠিকানা ও মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে তাদের কাছে টাকা দাবি করতেন। না দিলে তাদেরকে মাদক দিয়ে ফাঁসানোর হুমকি দিতেন।

এমএসি/আরএইচ