ঈশ্বরগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৬০ বছর প্রতীক্ষার পরে প্রথম সিজার 

মঙ্গলবার ২৩ আগস্ট ২০২২ ১৬:৪৮


এহসানুল হক, ঈশ্বরগঞ্জ(ময়মনসিংহ)প্রতিনিধিঃ
ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দীর্ঘ   ৬০ বছর প্রতীক্ষার পর এই প্রথম চালু হল সিজার ও অপারেশন কার্যক্রম। ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে এসেছে যুগান্তকারী পরিবর্তন। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোঃ নূরুল হুদা খানের অক্লান্ত প্রচেষ্টায় চালু হয় অস্ত্রপচার কার্যক্রম। 
মঙ্গলবার (২৩ আগস্ট) এক প্রসূতি মহিলার সিজারের 
মধ্য দিয়ে মেয়ে সন্তান প্রসব করানো হয়। আর এতেই মহাখুশি সেবা নিতে  আসা রোগীর স্বজনরা। এ চিকিৎসা ব্যবস্থা চালু হওয়ায় আনন্দিত উপজেলার সকল মানুষ। আনন্দে ভাসছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসকসহ সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ। 
এর ফলে উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকায় বসবাসকারী গর্ভবতী মায়েদের আর শহরের হাসপাতাল ও ক্লিনিকের উপর নির্ভর করতে হবে না। চিকিৎসা জনিত অবহেলায় ঝরবেনা কোন অসহায় গর্ভবতী মায়ের প্রাণ।
উপজেলার জাটিয়া ইউনিয়নের মালিয়াটি গ্রামের মোঃ শফিকুল ইসলামের স্ত্রী মোছাঃ রুবিনা খাতুন এর সিজারের মাধ্যমে অস্ত্রপচার কার্যক্রম চালু করেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ নুরুল হুদা খান। তাকে সহযোগিতা করেন আবাসিক মেডিকেল অফিসার জুনিয়র কনসাল্ট্যান্ট (গাইনী) ডা. শারমিন আক্তার, (এনেস্থিসিয়া) ডা. আফরোজা শাহীন, ডা. সুমি, ডা. সায়মা, আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সুমিত কুমার বসাক, মেডিকেল অফিসার (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ডা. দোলন, মেডিকেল অফিসার ডা. জাহিদ, নার্সিং সুপারভাইজার শিপ্রা রাণী এবং অন্যান্য মিডওয়াইফ বৃন্দ। 
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ নুরুল হুদা খান বলেন" মাননীয় সাংসদ ফখরুল ইমাম মহোদয়ের আগ্রহের মাধ্যমে এটি সম্ভব হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ যে তার পুরোধী নেতৃত্বের বলে যা সম্ভব নয় তা করতে আমরা পিছপা হচ্ছিনা। এজন্য আশেপাশের বহু স্বার্থান্বেষী মহলের ক্রমান্বয়িক ষড়যন্ত্র কটুক্তি ও শত্রুতাকে বরাবরই নিকুচি করেছি। সকলের দোয়া চাইছি যেন আপনাদের নতুন এম্বুলেন্স আয়োজন করাসহ  আরো ভাল কোন পদক্ষেপের সাথে আমার অংশগ্রহন থাকতে পারে।

এমএসি/আরএইচ